exercise

দ্রুত বীর্য পাতের চিকিৎসা

Natural Remedies for Premature Ejaculation

দ্রুত বীর্য পাতের চিকিৎসা প্রি-ম্যাচিউর ইজেকুলেশন একটি সাধারণ যৌনগত সমস্যা। প্রতি ৩ জন পুরুষের মধ্যে ১ জন এ সমস্যায় ভোগে থাকেন।একসময়ে ধারণা করা হতো, প্রি-ম্যাচিউর ইজাকুলেশন বা দ্রুত বীর্যপাতের কারণ হলো সম্পূর্ণ মানসিক; বর্তমানে বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রি-মেচিউর ইজেকুলেশন বা দ্রুত বীর্যপাতের ক্ষেত্রে শারীরিক বিষয়গুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। Home

দ্রুত বীর্য পাতের চিকিৎসা

দ্রুত বীর্যপাত রোধে করুনঘরোয়া চিকিৎসা সম্পর্কে কথা বলব :দ্রুত বীর্যপাত রোধে করুন ঘরোয়া চিকিৎসা কি ? এই সম্পর্কে আমরা বিস্তারিত জানব এবং বিস্তারিত আলোচনা করবো যদি আপনাদের কোন মতামত থাকে তাহলে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন আমাদের। তো চলুন বন্ধুরা আর দেরি না করে এক্ষুনি শুরু করা যাক দ্রুত বীর্য পাতের ভেষজ এর সম্পর্কে আলোচনা। Next

এশিয়া মহাদেশের মধ্যে হোমিও চিকিৎসাটা খুবই পুরনো একটি চিকিৎসা যেটা বাংলাদেশ এবং ভারতে খুবই প্রাচীনকাল থেকেই এই চিকিৎসাটা করে থাকে এবং এই ছেলে চিকিৎসা টার মোটামুটি ভালো সুনাম আছে যে চিকিৎসার কারণে অনেক ক্যান্সার রোগী থেকে অনেক বড় বড় রোগ থেকে মুক্তি মিলেছে তো সবাই মোটামুটি এই চিকিৎসার উপরে আমরা বিশ্বস্ত এছাড়াও আমরা আমাদের যৌন সমস্যা সমাধানের জন্য অনেকে শরণাপন্ন হয়ে থাকি সে ক্ষেত্রে আমরা আজকে এই চিকিৎসা সম্পর্কে কথা বলব এবং এই চিকিৎসা সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করব

যদি নিয়মিত সঙ্গি এবং সঙ্গিনীর ইচ্ছার চেয়ে দ্রুত বীর্যপাত ঘটে অর্থাৎ যৌন সঙ্গম শুরু করার আগেই কিংবা যৌনসঙ্গম শুরুর একটু পরেই বীর্যপাত ঘটে যায়- তাহলে যে সমস্যাটি বুঝা যাবে তার নাম প্রি-ম্যাচিউর ইজেকুলেশন।

কিছু পুরুষের ক্ষেত্রে দ্রুত বীর্যপাতের সাথে পুরুষত্বহীনতার সম্পর্ক রয়েছে। বর্তমানে অনেক চিকিৎসা বেরিয়েছে- যেমন বিভিন্ন ওষুধ, মনস্তাত্ত্বিক কাউন্সেলিং ও বিভিন্নযৌনপদ্ধতির শিক্ষা।

এগুলো বীর্যপাতকে বিলম্ব করে আপনার ও আপনার সঙ্গিনীর যৌনজীবনকে মধুর করে তুলবে। অনেক পুরুষের ক্ষেত্রে সমন্বিত চিকিৎসা খুব ভালো কাজ করে।

দ্রুত বীর্য পাতের ভেষজ চিকিৎসা

উপসর্গঃপুরুষের বীর্যপাত হতে কতটা সময় নেবে সে ব্যাপারে চিকিৎসাবিজ্ঞানে আদর্শ মাপকাঠি নেই। দ্রুত বীর্যপাতের প্রাথমিক লক্ষণ হলো নারী-পুরুষ উভয়ের পুলক লাভের আগেই পুরুষটির বীর্যপাত ঘটে যাওয়া।

এমনকি হস্তমৈথুনের সময়ও কিংবা শুধু যৌনমিলনের সময়ও।প্রি-ম্যাচিউর ইজেকুলেশনকে সাধারণত ২ ভাগে ভাগ করা হয়-এক. প্রাইমারি প্রি-ম্যাচিউর ইজেকুলেশন : এটি হলো আপনি যৌন সক্রিয় হওয়া মাত্রই বীর্যপাত ঘটে যাওয়া।দুই. সেকেন্ডারি প্রি-ম্যাচিউর ইজাকুলেশন : এ ক্ষেত্রে আগের বা প্রথম দিকের যৌনজীবন তৃপ্তিদায়কই ছিল, বর্তমানে দ্রুত বীর্যপাত ঘটছে।কারণঃকী কারণে দ্রুত বীর্যপাত হচ্ছে তা নিরূপণ করতে বিশেষজ্ঞরা এখন পর্যন্ত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

একসময় ধারণা করা হতো, এটা সম্পূর্ণ মানসিক ব্যাপার। কিন্তু বর্তমানে জানা যায়, দ্রুত বীর্যপাত হওয়া একটি জটিল বিষয় এবং যার সাথে মানসিক ও জৈবিক দু’টিরই সম্পর্ক রয়েছে

মানসিক কারণঃকিছু চিকিৎসক বিশ্বাস করেন, প্রথম বয়সে যৌন অভিজ্ঞতা ঘটলে তা এমন একটি অবস্থায় পৌছে যে, পরবর্তী যৌন জীবনে সেটা পরিবর্তন করা কঠিন হতে পারে। যেমন-* লোকজনের দৃষ্টিকে এড়ানোর জন্য তড়িঘড়ি বা তাড়াতাড়ি করে চরম পুলকে পৌঁছানোর তাগিদ।* অপরাধ বোধ, যার কারণে যৌনক্রিয়ার সময় হঠাৎ করেই বীর্যপাত ঘটে যায়।

দ্রুত বীর্য পাতের প্রাকৃতিক চিকিৎসা

দ্রুত বীর্য পাতের প্রাকৃতিক চিকিৎসা

দ্রুত বীর্যপাত বলতে বোঝায় যৌন মিলনের সময় সঙ্গীর শারিরিক সুখ উপলব্ধি হবার আগেই পুরুষের বীর্য ধরে রাখতে না পারার অক্ষমতাকে।

কত মিনিটকে দ্রুত বীর্যপাত বলা হয় এটা সঠিকভাবে বলা মুস্কিল। তবে একজন সুস্থ্য পুরুষ প্রথমবার মিলনে সর্বোচ্চ ১ বা ২ মিনিট সময় পাবেন। কিন্তু ২য় বার মিলনের ক্ষেত্রেও যদি এই সময় ২-৩ মিনিট হয় তাহলে সেটাকে দ্রুত বীর্যপাত হিসেবে ধরা যায়।

ক) শারীরিক সম্পর্কের ১মিনিটের কম সময়ের মধ্যে বীর্যপাত।

খ) যদি এই সমস্যা ৬মাস বা তার অধিক সময় ধরে চলতে থাকে।

গ) ৭৫-১০০% ক্ষেত্রে যদি সময়ের আগেই বীর্যপাত হয়ে যায়।

ঘ) পার্টনারের মধ্য যৌন অসন্তোষ, হতাশা সৃষ্টি হওয়া।

ঙ) কোন মানসিক বা শারীরিক রোগের উপস্থিতি, যা থেকে এই সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।

চ) কোন মাদকদ্রব্য বা ওষুধ সেবন,যার কারণে দ্রুত বীর্যপাত হচ্ছে।

দ্রুত বীর্যপাতের কারণঃ

দ্রুত বীর্যপাতের কারণগুলোকে দুই ভাগে ভাগ করা যায়ঃ

১)জৈবিক কারন

২) মানসিক কারন

১) জৈবিক কারণ সমূহঃ

ক) ডায়াবেটিস।

খ) থাইরয়েড গ্রন্থির সমস্যা।

গ) বিভিন্ন হরমোন জনিত সমস্যা।

ঙ)হৃদরোগ।

চ) মূত্রনালির সংক্রমন ও প্রদাহ।

ছ) বিভিন্ন রোগ, যেমনঃ সিফিলিস, গনোরিয়া ইত্যাদি।

জ) বিভিন্ন ওষুধ।

ঝ) সার্জারি বা আঘাত জনিত কারণে স্নায়ুতন্ত্র ক্ষতিগ্রস্ত হলে।

২) মানসিক কারণ

ক) দুঃশ্চিন্তা/মানসিক চাপ/ডিপ্রেশন।

খ) শারীরিক দূর্বলতা।

গ) সঠিক যৌন শিক্ষার অভাব।

ঘ) প্রি ম্যারাইটাল বা বিবাহ পূর্ব কাউন্সিলিং এর অভাব।

ঙ) সেক্স সম্পর্কে ভুল ধারনা।

চ) কম বয়সে সহবাস।

ছ) অতিরিক্ত প্রত্যাশা।

জ)আগের ব্যর্থতা বার বার মনে করা।

ঝ)সেক্সুয়াল এবিউজ।

ঞ)সম্পর্ক অবনতি /দাম্পত্য কলোহ।

ট)চাকরি -ব্যবসা জনিত কারণে দূরে থাকেন এবং অনেকদিন পরপর শারীরিক সম্পর্কের সুযোগ পান।

ঠ)মাদকাসক্ত /নেশাগ্রস্ত।

দ্রুত বীর্যপাত রোধ করার জন্য কোন ওষুধ আছে?

দ্রুত বীর্যপাত রোধ করার জন্য কোন ওষুধ আছে?
দ্রুত বীর্যপাত রোধ করার জন্য কোন ওষুধ আছে?

বীর্যপাত একটু দেরিতে করার ঘরোয়া উপায়ঃ যা যা লাগবেঃ ১. খাটি মধু ২. রসুনের কোয়া ৩.খেজুর ৪. একটি ঢাকনাযুক্ত কৌটা প্রথমে কৌটাতে পরিমাণ মতো খাটি মধু নিয়ে এতে রসুনের কোয়া…

দ্রুত বীর্য পাতের স্থায়ী চিকিৎসা ওষুধ

দ্রুত বীর্য পাতের স্থায়ী চিকিৎসা ওষুধ

ক্যাপসুল জিনটোন-
ট্যাবলেট ফ্রোডেক্স-
ক্যাপসুল এনডিউরেক্স-
ক্যাপসুল লিবিডেক্স-
লুবূব কবীর
মাজুন মুগাল্লিয
যদি আপনি বিবাহিতা হোন তাহলে উক্ত ঔষধ গুলো নিয়মিত ভাবে ৩ মাস খাবেন তাহলে আশা করি সমস্যা থেকে সমাধানন পাবেন।
আর অবিবাহিতা হলে দ্রুত বীর্যপাত এর চিকিৎসা না করাই উত্তম হস্তমৈথুন ছেড়ে নিন পর্নোগ্রাফি এড়িয়ে চলুন ,প্রসাবের সাথে বীর্য গেলে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসা নিবেন।

দ্রুত বীর্য পাতের চিকিৎসা

দ্রুত বীর্যপাত বা Premature Ejaculation বর্তমান সময়ের অন্যতম একটি সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। দ্রুত বীর্য পাতের চিকিৎসা ও ঘরোয়া কিছু উপায় অবলম্বন করে এর থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। কিন্তু দ্রুত বীর্যপাত রোধে বেশিরভাগ মানুষ সেবন করছে যৌন উত্তেজক ঔষধ যা আরো বেশি ক্ষতিকর। প্রথমে আমাদের জানতে হবে যে দ্রুত বীর্যপাত কি এবং এটি কেন হয়।

ব্যায়াম করার উপকারিতা ও অপকারিতা

উপকারিতা এবং কার্যকারিতা দেখতে আমাদের এই পোস্টটি ফলো করুন উপরের টাইটানিক ক্লিক করলে এই পোস্টটি বিস্তারিত দেখতে পারেন ব্যায়াম করার উপকারিতা কি আর কিভাবে ব্যায়াম করতে হয়

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button *